লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে শনিবার সেমি-ফাইনালে শিরোপাধারীদের বিপক্ষে ২-০ গোলে জিতেছে প্রতিযোগিতায় রেকর্ড ১৩ বারের চ্যাম্পিয়ন আর্সেনাল।

শেষ চারের আরেক ম্যাচে রোববার মুখোমুখি হবে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও চেলসি। তাদের মধ্যে জয়ী দলের বিপক্ষে আগামী ১ অগাস্ট এই মাঠেই শিরোপা লড়াইয়ে নামবে আর্সেনাল।

সিটির বিপক্ষে সব প্রতিযোগিতা মিলে টানা সাত হারের পর জয়ের দেখা পেল ‘গানার’ নামে পরিচিত দলটি। তাদের সবশেষ জয়টিও ছিল এফএ কাপের সেমি-ফাইনালে, ২০১৭ সালে। সেবারই ফাইনালে চেলসিকে হারিয়ে প্রতিযোগিতায় নিজেদের সবশেষ শিরোপাটি জিতেছিল তারা।

ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে ম্যাচের পঞ্চদশ মিনিটে প্রথম ভালো সুযোগ পায় আর্সেনাল। তবে গোলরক্ষক বরাবর শট নিয়ে সুযোগ নষ্ট করেন অবামেয়াং।

তিন মিনিট পরই অবশ্য দারুণ এক গোলে দলকে এগিয়ে নেন তিনি। ডান দিক থেকে  নিকোলাস পেপের ক্রসে ছোট ডি-বক্সের ভেতর থেকে হাফ-ভলিতে বল জালে পাঠান গ্যাবনের এই ফরোয়ার্ড।



বিরতির আগে ব্যবধান দ্বিগুণ হতে পারতো। আর্সেনালের জার্মান ডিফেন্ডার স্কোড্রান মুস্তাফির হেড কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন সিটি গোলরক্ষক এদেরসন।

প্রথমার্ধে সিটি কিছু সুযোগ তৈরি করেছিল বটে, তবে তাদের পাঁচ শটের একটিও ছিল না লক্ষ্যে।

বিরতির পর ভালো একটি সুযোগ পান রাহিম স্টার্লিং। কেভিন ডে ব্রুইনের পাসে ডি-বক্সের ভেতর থেকে বল পোস্টের বাইরে মারেন এই ইংলিশ মিডফিল্ডার।

৫৪তম মিনিটে রিয়াদ মাহরেজের নিচু শট বাঁ দিকে ঝাঁপিয়ে ঠেকান আর্সেনাল গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্তিনেস। একটু পর ডে ব্রুইনের ফ্রি-কিকে বল লাগে বাইরের জালে।

৭১তম মিনিটে পাল্টা-আক্রমণে স্কোরলাইন ২-০ করে আর্সেনাল। নিজেদের অর্ধ থেকে কিয়েরন টিয়ারনির লম্বা করে বাড়ানো বল ধরে ডি-বক্সে ঢুকে গোলরক্ষকের দুই পায়ের ফাঁক দিয়ে ঠিকানা খুঁজে নেন অবামেয়াং।

বাকি সময়ে অনেক চেষ্টা করেও ম্যাচে ফিরতে পারেনি সিটি। রেকর্ড ২১তম বারের মতো এফএ কাপের ফাইনালে ওঠে আর্সেনাল।

অধারাবাহিক পারফরম্যান্সে প্রিমিয়ার লিগে ১০ নম্বরে নেমে যাওয়া আর্সেনাল হঠাৎ করেই যেন ছন্দ খুঁজে পেয়েছে। তিন দিনের ব্যবধানে বড় দুই দলের বিপক্ষে জয় পেল তারা। লিগে গত বুধবার ঘরের মাঠে লিভারপুলকে ২-১ গোলে হারিয়েছিল লন্ডনের ক্লাবটি।





মূল সংবাদটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন